সিলেটে দু’দিনে ৮বার ভূমিকম্প সিলেটে দু’দিনে ৮বার ভূমিকম্প – Narail news 24.com
সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ০১:২৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ভবন নির্মাণে বিল্ডিং কোড অনুসরণ নিশ্চিত করতে ডিসি সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান নড়াইলে জি আর প্রকল্পের হরিলুট ! নড়াইলে স্বাস্থ্য বিভাগের অভিযান: ল্যাবস্টার ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধ ঘোষনা লোহাগড়ায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুপক্ষের সংঘর্ষে আহত ১৩ নড়াগাতীতে ট্রলি থেকে ছিটকে পড়ে প্রাণ গেল হেলপারের নড়াইলে স্মরণসভা সভা অনুষ্ঠিত যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় সশস্ত্র বাহিনীকে সক্ষম করে তোলা হচ্ছে – প্রধানমন্ত্রী অবৈধ বা যন্ত্রপাতিহীন হাসপাতাল বন্ধে অভিযান চলবে – স্বাস্থ্যমন্ত্রী দেশে মোট ভোটার ১২ কোটি সাড়ে ১৮ লাখ – সিইসি বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ছাত্রীকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় মাদরাসার ছাত্র খুন, আহত-২

সিলেটে দু’দিনে ৮বার ভূমিকম্প

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ৩০ মে, ২০২১

 নড়াইল নিউজ ২৪.কম ডেস্ক:

সিলেটে আবার ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে। রোববার (৩০ মে) ভোর ৪টা ৩৫ মিনিটে এ ভূমিকম্প অনুভূত হয়। তবে ভূমিকম্পটির মাত্রা কত ছিল তা জানা যায়নি। এ নিয়ে গতকাল ও আর রোববার ৮ দফা ভূমিকম্প অনুভূত হলো।

এর আগে শনিবার (২৯ মে) পর পর পাঁচ বার মৃদু ভূ-কম্পন অনুভূত হয়। সর্বশেষ শনিবার (২৯ মে) দুপুর ১টা ৫৮ মিনিটে পঞ্চম বার ভূমিকম্প অনুভূত হয়। এর আগে সকাল ১০টা ৩৭ মিনিটে প্রথম, ১০টা ৫১ মিনিটে দ্বিতীয়, বেলা ১১টা ২৯ মিনিটে তৃতীয় এবং ১১টা ৪০ মিনিটে চতুর্থ বার ভূমিকম্প অনুভূত হয়।

সিলেট আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা যায়, সিলেটে ছয় বা সাত বার ভূমিকম্প অনুভূত হলেও চার বারের ভূমিকম্প ধরা পড়েছে। এর মধ্যে সর্বশেষ দুপুর ১টা ৫৮মিনিটে অনুভূত হওয়া ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল রিখটার স্কেলে ৪। এর আগে ১০টা ৫১ মিনিটে দ্বিতীয় ভূমিকম্পের মাত্রা রিখটার স্কেলে ৪ দশমিক ১ মাত্রার ছিল। ১০টা ৩৭ মিনিটে যে ভূমিকম্প হয়েছিল সেটা রিখটার স্কেলে ছিল ৩ ও ১১টা ২৯ মিনিটে যেটা হয়েছিল সেটা ২ দশমিক ৮ মাত্রার ভূমিকম্প ছিল। তবে রোববার (৩০ মে) ভোর ৪টা ৩৫ মিনিটে অনুভূত হওয়া ভূমিকম্পের মাত্রা জানা যায়নি।

এদিকে ঘন ঘন ভূমিকম্পের কারণে সিলেট নগরের পাঠানটুলা দর্জিপাড়া এলাকার দুটি ছয় তলা ভবন হেলে পড়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ ও সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক) ভবন দুটি পরিদর্শন করেছে। পাশাপাশি সিলেট সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে একটি কন্ট্রোল রুম ও হটলাইন নম্বর চালু করা হয়েছে।

সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, সিলেটে আজ কিছুক্ষণ পর পর ভূমিকম্প হয়েছে। সেটিকে আমরা এলার্মিং হিসেবে নিয়েছি। ম্যাজিস্ট্রেট পুলিশ রোববার সকাল থেকে নগরের ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে অভিযান পরিচালনা করবে।

এর আগে গতকাল শনিবার ৭ দফায় ভূমিকম্প হয় সিলেটে। এবিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আর্থ এন্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স অনুষদের অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন ভূঁঞা বলেন, ‘আমরা জানতে পেরেছি, বাংলাদেশের উত্তর পূর্বাঞ্চলীয় সিলেট জৈন্তা এলাকায় এই ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল। যেটিকে ‘ডাউকি ফল্ট’ বলা হয়। এটি পূর্ব পশ্চিমে প্রায় তিনশ কিলোমিটার বিস্তৃত। যা দেশের অভ্যন্তরে পলিমাটি দিয়ে ঢাকা আছে। আজ সেখানে বেশ কয়েকবার স্বল্প মাত্রার ভূ-কম্পন অনুভূত হয়েছে। এটি আসলে অস্বাভাবিক কিছু নয়। অদূর ভবিষ্যতে বড় কোনো ভূমিকম্পের বার্তাও এটি নয়। তবে আমাদের প্রস্তুতি ও সতর্ক থাকতে হবে।’

‘ডাউকি ফল্টের’ সামগ্রিক বিষয় ব্যাখ্যা করে অধ্যাপক আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘দুইশত বছর আগে ১৭৯৬ সালে এই অঞ্চলে বড় মাত্রার ভূ-কম্পন হয়েছিল। রিসার্স অনুযায়ী বড় মাত্রার ভূ-কম্পন থেকে আরেকটি বড় মাত্রার ভূ-কম্পন হতে ৫০০ থেকে ২০০০ হাজার বছর সময় নেয়। এ হিসেবে বাংলাদেশে বড় ধরনের ভূমিকম্প হতে আরো ৩০০ বছর লাগার কথা। তবে প্রকৃতির খেয়ালে যেকোন সময় বড় ধরনের ভূ-কম্পন হতে পারে।’

দফায় দফায় স্বল্প মাত্রার ভূ-কম্পনে বড় কোনো ভূমিকম্প না হওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘পৃথিবীতে প্রতিদিন অন্তত ৫০ বার ভূ-কম্পন হয়। কিন্তু কম মাত্রায় হওয়ায় সেটা আমরা বুঝতে পারি না। তবে রিখটার স্কেলে ৩ মাত্রার বেশি হলে সেটা আমরা বুঝতে পারি। আজকের সিলেটের ঘটনাটাও এমনই স্বাভাবিক।’

বার বার ভূ-কম্পনের ব্যাখ্যা করে তিনি বলেন, ‘সাগরের ঢেউ বড় তবে সেটি আস্তে আস্তে আসে। এটি তৈরি হতেও সময় লাগে। আবার কোনো পুকুরে ছোট ঢেউ হয় তবে এটি খুব দ্রুত পাড়ে আঁচড়ে পরে। ঠিক তেমনি বড় কম্পন হলে সেটি সময় নিয়ে আসে। ছোট কম্পন খুব দ্রুতই তৈরি হয়। তাই দফায় দফায় স্বল্প মাত্রার কম্পন বড় কোনো ভূমিকম্পের বার্তা বহন করে না। তবে সিলেটের বিষয়টি নিয়ে গবেষণা হওয়া প্রয়োজন আছে।’

শনিবার সকাল ১০টা ৩৬ মিনিটে, ১০টা ৫১ মিনিটে, বেলা ১১টা ২৯ মিনিটে, ১১টা ৩৪ মিনিটে দুবার ও বেলা ২টায় এভাবে মোট ছয়বার কেঁপে ওঠে সিলেট। প্রথম এক ঘণ্টার মধ্যে চারবার কম্পনে অফিস-আদালতে থাকা মানুষের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। অনেকেই কর্মস্থল থেকে বের হয়ে খোলা স্থান ও সড়কে চলে যায়। তবে কোথাও কোনো ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের ভূমিকম্প পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র বলছে, সিলেটের ভূমিকম্পের রিখটার স্কেলে সর্বোচ্চ মাত্রা ছিল ৪ দশমিক ১। এছাড়া রিখটার স্কেলে ৪, ৩ ও ২.৮ মাত্রার কম্পন রেকর্ড করা হয়। আর অন্যগুলোর মাত্রা এতো মৃদু ছিলো যে তা রেকর্ড করা সম্ভব হয়নি।

© এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি

ফেসবুকে শেয়ার করুন

More News Of This Category
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
Developed by: A TO Z IT HOST
Tuhin
x