পশ্চিমবঙ্গে ইয়াসে ক্ষতিগ্রস্ত ১ কোটি মানুষ: মমতা বন্দোপ্যাধ্যায় পশ্চিমবঙ্গে ইয়াসে ক্ষতিগ্রস্ত ১ কোটি মানুষ: মমতা বন্দোপ্যাধ্যায় – Narail news 24.com
সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ১০:০২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
লোহাগড়ায় রেল প্রজেক্টের চোরাই মালসহ গ্রেফতার ১ কালিয়ায় ৬ ক্লিনিককে জরিমানা,অপারেশন থিয়েটার সিলগালা নড়াইলে ক্লাইমেট স্মার্ট কৃষি প্রযুক্তি মেলা শুরু ভবন নির্মাণে বিল্ডিং কোড অনুসরণ নিশ্চিত করতে ডিসি সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান নড়াইলে জি আর প্রকল্পের হরিলুট ! নড়াইলে স্বাস্থ্য বিভাগের অভিযান: ল্যাবস্টার ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধ ঘোষনা লোহাগড়ায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুপক্ষের সংঘর্ষে আহত ১৩ নড়াগাতীতে ট্রলি থেকে ছিটকে পড়ে প্রাণ গেল হেলপারের নড়াইলে স্মরণসভা সভা অনুষ্ঠিত যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় সশস্ত্র বাহিনীকে সক্ষম করে তোলা হচ্ছে – প্রধানমন্ত্রী

পশ্চিমবঙ্গে ইয়াসে ক্ষতিগ্রস্ত ১ কোটি মানুষ: মমতা বন্দোপ্যাধ্যায়

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২৭ মে, ২০২১

নড়াইল নিউজ ২৪.কম আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

প্রবল শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের আঘাতে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে প্রায় ১ কোটি মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবার ঝড়ের তাণ্ডব শেষ হওয়ার পর মুখ্যমন্ত্রীর কার্যালয় নবান্নে এক সংবাদ সম্মেলনে ঝড়ে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে ক্ষয়ক্ষতির তথ্য তুলে ধরেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘ঝড়ের আগে রাজ্যের বিভিন্ন এলকা থেকে মোট ১৫ লাখ ৪ হাজার ৫০৬ জনকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছিল। তা সত্ত্বেও প্রায় এক কোটি মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।’

‘রাজ্যের তিন লাখ বাড়ির ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। নদীর বাঁধ ভেঙেছে ১৩৪ টি। সামুদ্রিক জলোচ্ছাসের কারণে কৃষির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে, মৎসসম্পদেরও ক্ষতি হয়েছে।’

গতকাল ঝড় চলার সময় পশ্চিমবঙ্গে একজন মারা গেছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘আশ্রয়কেন্দ্রে ওঠার পরও ওই ব্যক্তি মাছ ধরার জন্য জাল ফেলতে গিয়েছিলেন। তখন জলে ডুবে মৃত্যু হয় তার।’

মুখ্যমন্ত্রী জানান, উপদ্রুত এলাকার ত্রাণশিবিরগুলোতে ইতোমধ্যে ১০ লাখ ত্রিপলসহ পর্যাপ্ত পরিমাণে চাল ও শুকনো খাবার পাঠানো হয়েছে। শুক্রবার ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলো পরিদর্শনে যাবেন বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের কারণে পশ্চিমবঙ্গে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলোর একটি তালিকা প্রকাশ করেছে নবান্ন। এই এলাকাগুলো হলো সন্দেশখালি, নামখানা, পাথরপ্রতিমা, বাসন্তী, ক্যানিং ১ ও ২ নম্বর ব্লক, বজবজ, দিঘা, শংকরপুর, তাজপুর, রামনগর, কাঁথি, নন্দীগ্রাম, সুতাহাটা, দেশপ্রাণ, কোলাঘাট, ও শ্যামপুর।

এছাড়া কলকাতার কালীঘাট, চেতলা, রাসবিহারীসহ গঙ্গার কাছাকাছি অনেক এলাকা এখনও জলমগ্ন অবস্থায় আছে বলে জানিয়েছেন নবান্নের কর্মকর্তারা।

বঙ্গোপসাগরে একটি নিম্নচাপ থেকে উদ্ভুত হওয়ার পর বুধবার সকাল থেকেই পশ্চিমবঙ্গ ও ওডিশা রাজ্যের উপকূলবর্তী এলাকাগুলোতে দাপট দেখাতে শুরু করে ঘূর্ণিঝড় ইয়াস। পশ্চিমবঙ্গের পূর্ব মেদিনিপুর জেলার সৈকত শহর দিঘা ও ওডিশার ভদ্রক জেলার ধামরা এলাকায় সকাল থেকেই শুরু হয় প্রবাল ঝড় বৃষ্টি ও জলোচ্ছাস।

ভারতের কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দফতরের বুলেটিনে বলা হয়েছিল, ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে ওডিশার বেশিরাভাগ এলাকায় ভারী বৃষ্টি ও ঘণ্টায় ১০০ থেকে ১১০ কিলোমিটার বেগে ঝড়ো হওয়া বয়ে যাবে। এছাড়া উপকূলবর্তী এলাকায় জলোচ্ছাসের সময় সেখানে সমুদ্রের ঢেউয়ের উচ্চতা হতে পারে ২ থেকে ৪ মিটার পর্যন্ত।

দেশটির টেলিভিশন চ্যানেলগুলোতে প্রচারিত ভিডিও ফুটেজে দেখা যাচ্ছে, ইয়াসের প্রভাবে সমুদ্র উত্তাল হয়ে উঠেছে, তীব্র বাতাস এবং ভারী বর্ষণ হচ্ছে ওডিশায়। ঝড়ের তাণ্ডবে অনেক গাছপালা উপড়ে পড়েছে ও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে শত শত বাড়িঘর।

এবার জলোচ্ছ্বাসের মাত্রা এতটাই ছিল যে পশ্চিমবঙ্গের দিঘা শহরের সব দোকানপাট ও একতলা বাড়িঘর ডুবে গেছে। এ ছাড়াও দিঘার রাস্তাঘাট আর সমুদ্র একাকার হয়ে গেছে। জলোচ্ছ্বাসে ডুবে গেছে খেতের ফসল। ভাসিয়ে নিয়ে গেছে অনেক গবাদিপশু। ক্ষতি হয়েছে পূর্ব মেদিনীপুর, উত্তর ও দক্ষিণ চব্বিশ পরগনাতেও। তবে এ যাত্রায় বেঁচে গেছে পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী কলকাতা।

এক সপ্তাহের ব্যবধানে এই নিয়ে দু’টি বিধ্বংসী ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানল ভারতে। গত সপ্তাহে ভারতের গুজরাট ও মহারাষ্ট্র রাজ্যে আঘাত হেনেছিল ঘূর্ণিঝড় তওকত। দেশটির দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের তথ্য অনুযায়ী তওকতের আঘাতে অন্তত ১৫০ মানুষের মৃত্যু হয়েছিল।

© এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি

ফেসবুকে শেয়ার করুন

More News Of This Category
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
Developed by: A TO Z IT HOST
Tuhin
x