নিট পোশাক থেকে এসেছে রপ্তানি আয়ের অর্ধেক নিট পোশাক থেকে এসেছে রপ্তানি আয়ের অর্ধেক – Narail news 24.com
শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:১৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সবার সাথে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করুন – প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশ পরিচালনায় মসৃণভাবে এগিয়ে যাচ্ছেন – মার্কিন থিঙ্ক-ট্যাঙ্ক জন্মটাই যাদের অগণতান্ত্রিক, সেই বিএনপিই গণতন্ত্রের কথা বলে মন্তব্য পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নড়াইলে দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেল বাসচলকের, আহত ১৯ লোহাগড়ায় মোটরসাইকেলের জন্য আত্মহত্যা ! কিশোর অপরাধীদের মোকাবেলায় বিশেষ নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী – মাহবুব হোসেন ব্রাজিল বাংলাদেশ থেকে সরাসরি তৈরি পোশাক আমদানি করতে পারে – প্রধানমন্ত্রী সৌদিতে চাঁদ দেখা যায়নি , বুধবার পবিত্র ঈদুল ফিতর লোহাগড়ায় নদীতে পড়ে নিখোঁজ শিশুর সন্ধান মেলেনি নড়াইলে নিম্ন আয়ের মানুষের মাঝে ইফতার বিতরণ 

নিট পোশাক থেকে এসেছে রপ্তানি আয়ের অর্ধেক

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারী, ২০২২

নড়াইল নিউজ ২৪.কম ডেস্ক:

বাংলাদেশ মহামারিকালে কম দামি পোশাকে ভর করেই রপ্তানিতে চমক দেখিয়ে চলেছে । করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন আতঙ্ক ছড়ালেও অতি প্রয়োজনীয় কম দামের পোশাক বিশেষ করে নিট পোশাক রপ্তানি কমবে না বলে জানিয়েছেন এ খাতের রপ্তানিকারক সংশ্লিষ্টরা।

চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরের প্রথমার্ধে অর্থাৎ জুলাই-ডিসেম্বর সময়ে বিভিন্ন পণ্য রপ্তানি করে ২ হাজার ৪৭০ কোটি (২৪ দশমিক ৭০ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি আয় করেছেন বাংলাদেশের রপ্তানিকারকরা। এর মধ্যে প্রায় অর্ধেক, ৪৫ দশমিক ২০ শতাংশই এসেছে নিট পোশাক রপ্তানি থেকে।

বাংলাদেশের রপ্তানি আয়ের প্রধান খাত তৈরি পোশাক শিল্পের দুটি উপখাত ওভেন ও নিট। আগে নিটের চেয়ে ওভেন পোশাক রপ্তানি থেকে বেশি বিদেশি মুদ্রা দেশে আসত। বেশ কয়েক বছর ধরে রপ্তানি বাণিজ্যে এ দুই খাতের অবদান ছিল কাছাকাছি। কিন্তু করোনা মহামারি শুরু হওয়ার পর থেকে ওভেনকে পেছনে ফেলে উপরে উঠে আসে নিট খাত।
রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) তথ্য ঘেঁটে দেখা যায়, ২০১৯-২০ অর্থবছরে পোশাক রপ্তানি থেকে মোট ২৭ দশমিক ৯৫ বিলিয়ন ডলার আয় করেছিল বাংলাদেশ। এর মধ্যে ওভেন পোশাক থেকে এসেছিল ১৪ দশমিক ০৪ বিলিয়ন ডলার। আর নিট পোশাক থেকে এসেছিল ১৩ দশমিক ৯০ বিলিয়ন ডলার।

২০২০-২১ অর্থবছরে পাল্টে যায় চিত্র; নিট থেকে আসে প্রায় ১৭ বিলিয়ন ডলার। আর ওভেন থেকে আসে ১৪ দশমিক ৫০ বিলিয়ন ডলার।

চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরের প্রথম ছয় মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর) সেই ব্যবধান আরও বেড়েছে। এই ছয় মাসে তৈরি পোশাক রপ্তানি থেকে ১৯ দশমিক ৯০ বিলিয়ন ডলার আয় করেছেন পোশাক রপ্তানিকারকরা। এর মধ্যে নিট পোশাক থেকে এসেছে ১১ দশমিক ১৬ বিলিয়ন ডলার। ওভেন থেকে এসেছে ৮ দশমিক ৭৪ বিলিয়ন ডলার।

জুলাই-ডিসেম্বর সময়ে পোশাক রপ্তানি থেকে ১৯ দশমিক ৯০ বিলিয়ন ডলারের যে বিদেশি মুদ্রা দেশে এসেছে তারমধ্যে ৫৬ দশমিক শূন্য ৫ শতাংশই এসেছে নিট পোশাক রপ্তানি থেকে। এই ছয় মাসে নিটে প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৩১ শতাংশ। আর ওভেনে রপ্তানি বেড়েছে ২৪ দশমিক ৫০ শতাংশ।

নিট পোশাক শিল্প মালিকদের সংগঠন বিকেএমইএ-এর নির্বাহী সভাপতি মোহাম্মদ হাতেম বলেন, ‘সত্যি কথা বলতে কি, আমরা নিজেরাও ভাবিনি নিট খাতের রপ্তানি এতোটা বাড়বে। এই যে মহামারির মধ্যেও দেশের রপ্তানি আয়ে উল্লম্ফন হচ্ছে, তা কিন্তু নিট পোশাকের ওপর ভর করেই। মানুষ যত সমস্যাতেই থাকুক, যত অর্থ সঙ্কটেই থাকুক না কেন, অতি প্রয়োজনীয় কাপড় কিনতেই হয়। সে কারণে নিট পোশাক রপ্তানি বাড়ছে।’
তিনি আরও বলেন, ‘আমরা এখন ওমিক্রন নিয়ে চিন্তায় আছি। তবে, যদি দেশে দেশে আবার লকডাউন শুরু না হয়, তাহলে আমাদের রপ্তানিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে না। বর্তমানের ইতিবাচক ধারা আগামী ছয় মাস অব্যাহত থাকবে। সে বিবেচনায় গত অর্থবছরের মতো এবারও একটা ভালো বছর পার করব বলে মনে হচ্ছে।’

ওভেন পোশাক শিল্পমালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ-এর সাবেক সভাপতি ও এভিন্স গ্রুপের চেয়ারম্যান আনোয়ার-উল আলম চৌধুরী পারভেজ বলেন, ‘মহামারির কঠিন সময়ে কম দামি পোশাক রপ্তানি করছি আমরা। বায়াররা অতি প্রয়োজনীয় পোশাক কিনেছেন। সে কারণে নিট পোশাকের রপ্তানি বেড়েছে। এখন অবশ্য ওভেনও ভালো রপ্তানি হচ্ছে। প্রচুর অর্ডার আসছে। দামও ভালো পাওয়া যাচ্ছে। সব মিলিয়ে আমাদের ভালো দিন যাচ্ছে বলা যায়। তবে ওমিক্রনের ভয় সব সময় তাড়া করছে আমাদের।’

ইপিবির তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, চলতি অর্থবছরের জুলাই-ডিসেম্বর সময়ে মোট ২৪ দশমিক ৭০ বিলিয়ন ডলারের রপ্তানি আয়ের মধ্যে ৮০ দশমিক ৫৭ শতাংশ এসেছে তৈরি পোশাক (নিট ও ওভেন) থেকে।

এই রপ্তানিতে নিট পোশাক খাতের অবদান হচ্ছে ৪৫ দশমিক ২০ শতাংশ। আর ওভেনের অবদান ৩৫ দশমিক ৩৮ শতাংশ।

© এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি

ফেসবুকে শেয়ার করুন

More News Of This Category
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
Developed by: A TO Z IT HOST
Tuhin
x