খাদ্য নিরাপত্তায় ভারতকে পেছনে ফেলল বাংলাদেশ খাদ্য নিরাপত্তায় ভারতকে পেছনে ফেলল বাংলাদেশ – Narail news 24.com
শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ০৯:২২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
নড়াইলে দুই মাদক ব্যাবসায়ীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড কংগ্রেসম্যানদের সই জালকারী বিএনপি একটি জালিয়াত রাজনৈতিক দল মন্তব্য পররাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রধানমন্ত্রী শ্রমিকদের জন্য সব কিছু করে যাচ্ছেন – বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী জুজুৎসুর নিউটনের ‘ভয়ংকর’ যৌন নিপীড়নের তথ্য জানালো র‍্যাব ভাঙ্গা-বেনাপোল রেলপথে আগামী অক্টোবর থেকে বাণিজ্যিকভাবে ট্রেন চলবে – রেলপথমন্ত্রী নড়াইলে হুইপ মাশরাফির বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে আওয়ামী লীগ দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে – প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র প্রত্যাবর্তন মুক্তিযুদ্ধের হারিয়ে যাওয়া মূল্যবোধের প্রত্যাবর্তন – কাদের যে পরিকল্পনায় খুন হন মল্লিকপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান জানালো র‌্যাব এক আতঙ্কিত জনপদের নাম লোহাগড়া !

খাদ্য নিরাপত্তায় ভারতকে পেছনে ফেলল বাংলাদেশ

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ৯ জুন, ২০২১

নড়াইল নিউজ ২৪.কম আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

খাদ্য নিরাপত্তা সূচকে প্রতিবেশী দেশ ভারতকে পেছনে ফেলেছে বাংলাদেশ। জাতিসংঘের সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট গোল (এসডিজি) বা টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান দেশটির ওপরেই।

একই অবস্থা লিঙ্গ সমতার ক্ষেত্রেও। জাতিসংঘের সূচকে সেখানেও এগিয়ে বাংলাদেশ, পিছিয়ে ভারত। অবশ্য দক্ষিণ এশিয়ার অন্য তিন প্রতিবেশী দেশও পেছনে ফেলেছে নয়া দিল্লিকে।

জাতিসংঘের খাদ্য নিরাপত্তা সূচকে চলতি বছর বিশ্বের ১৯৩টি দেশের মধ্যে ভারতের অবস্থান ১১৭-তে ৷ গত বছর যা ছিল ১১৫ ৷ তবে প্রতিবেশী বাংলাদেশ এ ক্ষেত্রে পেছনে ফেলেছে ভারতকে। এমনকি শ্রীলংকা, ভুটান ও নেপালের মতো তথাকথিত ছোট অর্থনীতির দেশও রয়েছে ভারতের আগে।

২০১৫ সালে জাতিসংঘ টেকসই উন্নয়ন পরিকল্পনা (এসডিজি) হাতে নেয়। এর লক্ষ্য ২০৩০ সালের মধ্যে বিশ্বে শান্তি ও সমৃদ্ধি নিশ্চিত করা। সেই লক্ষ্যে ১৭টি লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। এ লক্ষ্যে দেশগুলোকে নির্দিষ্ট পরিকল্পনা নিতেও বলা হয় জাতিসংঘের পক্ষ থেকে। এর মধ্যে দারিদ্র্যতা দূরীকরণ, সকলের জন্য খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত, সুস্বাস্থ্য, উন্নত শিক্ষা, লিঙ্গবৈষম্য প্রতিরোধ অন্যতম।

জাতিসংঘের সেই এসডিজি’র সূচকে ভারত গত বছরের তুলনায় খারাপ ফলে করে দুই ধাপ নিচে নামল ৷ যা বাংলাদেশ, শ্রীলংকা, ভুটান ও নেপালের থেকেও খারাপ। সূচকে ভারতের সর্বমোট স্কোর একশোর মধ্যে ৬১ দশমিক ৯ ৷ নাগরিকদের সবার খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হওয়া এবং লিঙ্গ সমতা নিশ্চিত করতে না পারার কারণে ভারতের এই অবনতি বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

অন্যদিকে এনভাইরনমেন্টাল পারফরমেন্স ইন্ডেক্স বা ইপিআই সূচকে ১৮০টি দেশের মধ্যে ভারতের স্থান ১৬৮তম। ইপিআই’র ক্ষেত্রে বিবেচনা করা হয় দেশের প্রাকৃতিক পরিবেশের স্বাস্থ্য, আবহাওয়া, বায়ু দূষণ, পরিচ্ছন্নতা, খাবার পানীয়, বসবাসের সুযোগ-সুবিধা ও জীববৈচিত্র।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে বার বার দেশটির উন্নয়নের দাবি করা হলেও তাদের সেই আস্ফালন আর পরিসংখ্যান স্ব-বিরোধী তথ্য দিচ্ছে। তথ্য বলছে, জনস্বাস্থ্য থেকে সর্বজনীন শিক্ষা, শিশুদের অপুষ্টি দূরীকরণ বা বেকারত্ব— অর্থনীতি-কর্মসংস্থানের মতো এই সব গুরুত্বপূর্ণ সূচকে ক্রমেই প্রতিবেশী দেশগুলোর তুলনায় নিচে নামছে ভারত।

প্রতিবেশী বাংলাদেশ তো বটেই, শ্রীলংকা, ভুটান, নেপালের মতো তথাকথিত ছোট অর্থনীতির দেশও গত কয়েক বছরে বিভিন্ন ক্ষেত্রেই ভারতকে পেছনে ফেলে এগিয়ে গিয়েছে। আর এই পরিসংখ্যানেই উদ্বিগ্ন দেশটির অর্থনীতিবিদরা।

© এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি

ফেসবুকে শেয়ার করুন

More News Of This Category
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
Developed by: A TO Z IT HOST
Tuhin
x