আমন্ত্রণ দিতে দেরি: সরকারি কর্মকর্তাকে এলাকাছাড়া করতে চায় এমপি ! আমন্ত্রণ দিতে দেরি: সরকারি কর্মকর্তাকে এলাকাছাড়া করতে চায় এমপি ! – Narail news 24.com
বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:০৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
সবার সাথে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করুন – প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশ পরিচালনায় মসৃণভাবে এগিয়ে যাচ্ছেন – মার্কিন থিঙ্ক-ট্যাঙ্ক জন্মটাই যাদের অগণতান্ত্রিক, সেই বিএনপিই গণতন্ত্রের কথা বলে মন্তব্য পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নড়াইলে দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেল বাসচলকের, আহত ১৯ লোহাগড়ায় মোটরসাইকেলের জন্য আত্মহত্যা ! কিশোর অপরাধীদের মোকাবেলায় বিশেষ নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী – মাহবুব হোসেন ব্রাজিল বাংলাদেশ থেকে সরাসরি তৈরি পোশাক আমদানি করতে পারে – প্রধানমন্ত্রী সৌদিতে চাঁদ দেখা যায়নি , বুধবার পবিত্র ঈদুল ফিতর লোহাগড়ায় নদীতে পড়ে নিখোঁজ শিশুর সন্ধান মেলেনি নড়াইলে নিম্ন আয়ের মানুষের মাঝে ইফতার বিতরণ 

আমন্ত্রণ দিতে দেরি: সরকারি কর্মকর্তাকে এলাকাছাড়া করতে চায় এমপি !

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ৮ মার্চ, ২০২২
নাদিরা ইয়াসমিন জলি, এমপি (বামে) ও কানিজ আইরিন জাহান, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা, পাবনা (ডানে)

নড়াইল নিউজ ২৪.কম ডেস্ক:

নারী দিবসের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ দিতে দেরি হওয়ায় মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তাকে থাপ্পড় দিয়ে এলাকাছাড়া করার হুমকির অভিযোগ উঠেছে পাবনা-সিরাজগঞ্জ সংরক্ষিত আসনের এমপি নাদিরা ইয়াসমিন জলির বিরুদ্ধে।

সোমবার সকালে এমপি এমন কাণ্ড ঘটিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন জেলা মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তা কানিজ আইরিন জাহান। মঙ্গলবার সকালে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে নারী দিবস উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে দেয়া বক্তব্যেও এ বিষয়ে অভিযোগ করেছেন তিনি।

এর আগে কথোপকথনের একটি অডিও রেকর্ডও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তা কানিজ আইরিনের দাবি, এটি তার ও এমপি নাদিরা ইয়াসমিন জলির কথোপকথনের অডিও রেকর্ড।
কানিজ আইরিন বলেন, ‘নারী দিবস উপলক্ষে মহিলাবিষয়ক অধিদপ্তরের আয়োজনে অনুষ্ঠানে সংরক্ষিত আসনের মহিলা সংসদ সদস্য নাদিরা ইয়াসমিন জলিকে প্রধান অতিথি করা হয়েছিল। দাপ্তরিক ব্যস্ততার কারণে আমন্ত্রণপত্র দিতে একটু দেরি হয়।’

‘গতকাল (সোমবার) বেলা ১১টায় সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শামসুন্নাহার রেখা আমাকে ফোন করে সংসদ সদস্য নাদিরা ইয়াসমিন কেন চিঠি পাননি এর কারণ জানতে চান। আমি তাকে চিঠি পাঠানো হচ্ছে বলে জানাই।’

হুমকির অভিযোগ করে তিনি বলেন, ‘এ সময় সংসদ সদস্য নাদিরা ইয়াসমিন জলি ফোন নিয়ে আমাকে গালিগালাজ শুরু করেন। একপর্যায়ে আমাকে থাপ্পড় দিয়ে পাবনা ছাড়া করবেন বলে ধমক দেন। আমাকে দুর্নীতিবাজ বলে গালি দিয়ে ১০ মিনিটের মধ্যে পাবনা থেকে তাড়াতে পারেন বলেও হুমকি দেন তিনি।’

ভাইরাল হওয়া অডিও রেকর্ডে শোনা যায়, প্রথমে ভাইস চেয়ারম্যান শামসুন্নাহার রেখা মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তাকে ফোন দিয়ে মহিলা এমপিকে কেন আমন্ত্রণ জানানো হয়নি জানতে চান। মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তা চিঠি পাঠানো হয়েছে বলে জানালে বাসায় কেন লোক পাঠানো হয়নি বা ফোন করা হয়নি তা জানতে চান।

একপর্যায়ে নাদিরা ইয়াসমিন জলি এমপি ফোন কেড়ে নিয়ে বলেন, ‘এই, আপনি কী হয়েছেন? আপনি নারী হয়ে নারীদের সম্মান করেন না। আপনাকে এক থাপ্পড় মেরে পাবনা ছাড়া করব কিন্তু, বেশি স্পর্ধা হয়েছে। সবকিছু কি আপনার লিজ দেয়া হয়েছে?’
এ সময় তাকে আরও বলতে শোনা যায়, ‘মেয়েদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করেন, আপনাকে কী করে পাবনা ছাড়া করতে হয় তার ব্যবস্থা আমি করছি। আপনাকে পাবনা ছাড়া করা মাত্র দশ মিনিটের বিষয়…’ বলে গালিগালাজ করতে থাকেন।

এ ঘটনায় কানিজ ফাতেমা বলেন, ‘আমার কাজে অনিয়ম, ভুল-ত্রুটি পেলে তিনি বকা দিতে পারেন, প্রশাসনিক ব্যবস্থা নিতে সুপারিশ করতে পারেন। কিন্তু থাপ্পড় দেয়ার কথা বলতে পারেন না।’

ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘আমার বাবা-মাও কখনো আমাকে থাপ্পড় দেননি। অথচ নারী দিবসে আমাকে এমন একটি পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হলো। আমি এখানে সরকারের দায়িত্ব পালন করতে এসেছি, নারী দিবসের দিনে থাপ্পড় খেতে নয়। ঘটনার পর থেকে আমি শারীরিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েছি।’

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে নাদিরা ইয়াসমিন জলি এমপি মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তার সঙ্গে উত্তপ্ত বাক্যবিনিময়ের কথা স্বীকার করেছেন।

এ সময় মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তা কানিজ ফাতেমাকে দুর্নীতিপরায়ণ, স্বেচ্ছাচারী অভিহিত করে তিনি বলেন, ‘মহিলা এমপি হওয়া সত্ত্বেও নারী দিবসের অনুষ্ঠানে মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তা আমাকে আমন্ত্রণ জানানোর প্রয়োজন মনে করেননি। নারী সমাজের প্রতিনিধিকে অপমান, অবজ্ঞা, তাচ্ছিল্য করে তিনি সমগ্র নারী জাতির অবমাননা করেছেন।’

থাপ্পড় দিতে চেয়েছেন কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘উনি একজন প্রোগ্রাম অফিসার, জেলার অতিরিক্ত হিসেবে দায়িত্বে রয়েছেন। তিনি জেলায় দুর্নীতির রাজত্ব কায়েম করেছেন। আমি তাকে বারবার সংশোধন হতে বলেছি। কিন্তু তার অপকর্ম অব্যাহত রেখেছেন।

‘গতকাল (সোমবার) কয়েকবার ফোন দেয়ার পরেও তিনি আমার ফোন ধরেননি। পরে অন্য ফোন রিসিভ করায় আমি উত্তেজিত হয়ে পড়েছিলাম। তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে সুপারিশ করব।’

এ বিষয়ে নারী দিবসের অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করা পাবনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (স্থানীয় সরকার) মোখলেসুর রহমান বলেন, ‘মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তা মৌখিকভাবে অভিযোগ করেছেন। এ ব্যাপারে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত নেবে।’

© এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি

ফেসবুকে শেয়ার করুন

More News Of This Category
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
Developed by: A TO Z IT HOST
Tuhin
x