আজ মাশরাফির ও ছেলে সাহেলের জন্মদিন আজ মাশরাফির ও ছেলে সাহেলের জন্মদিন – Narail news 24.com
রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ০৮:১২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ঢাকা-নয়াদিল্লি উভয়ের জন্য টেকসই ভবিষ্যত নিশ্চিত করতে যৌথ দৃষ্টিভঙ্গিতে সম্মত – প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উল্লেখযোগ্য অর্থনৈতিক অগ্রগতির প্রশংসায় ভারতের রাষ্ট্রপতি চার জেলায় নতুন দিগন্তের সূচনা করবে ভাঙ্গা-নড়াইল-যশোর রেল লাইন লোহাগড়া উপজেলা ও পৌর যুবলীগের সম্মেলন ৬ জুলাই লোহাগড়ায় নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ৩ জনকে কুপিয়ে যখম সবুজ বাংলাদেশ গড়তে সারাদেশে সাধ্যমতো গাছ লাগাতে প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান সেন্টমার্টিনে মিয়ানমারের গোলাগুলি, প্রয়োজনে জবাব দেয়া হবে – ওবায়দুল কাদের ঈদের ছুটিতে স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে অধিদপ্তরের যে নির্দেশনা মানতে হবে অবসরকালীন সময়ে জন্মভূমি মধুমতী পাড়ে আসব – সেনা প্রধান জেনারেল শফিউদ্দিন আহমেদ কালিয়ায় গুলিতে আহত-২, বাড়ীঘর ভাংচুর ও লুটপাটের পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

আজ মাশরাফির ও ছেলে সাহেলের জন্মদিন

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ৫ অক্টোবর, ২০২১
ছবি সংগৃহীত

বিশেষ প্রতিনিধি, নড়াইল নিউজ ২৪.কম

বাংলাদেশ ক্রিকেটের উজ্জ্বল নক্ষত্র, সাবেক সফল ওয়ানডে অধিনায়ক, নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মর্তুজা(কৌশিক) এর জন্ম দিন। ১৯৮৩ সালের (৫ অক্টোবর) আজকের দিনে নড়াইলে জন্ম গ্রহন করেন। ডাকনাম তার কৌশিক। মজার ব্যাপার হলো তার ছেলে সাহেলের জন্মদিনটাও আজকের দিনে। ভাগ্যবান বাবাই বলতে হবে তাকে, মাশরাফি অবশ্য অনেকবারই বলেছেন কথাটা। ২০১৪ সালের এই দিনে ঢাকায় জন্ম গ্রহন করেন সাহেল।মাশরাফি ৩৮ এ পা রাখলেন এবং সালের ৭ বছরে পা দিলেন। এদিকে প্রিয় মাশরাফি ও তার ছেলে সাহেলের জন্ম দিন উপলক্ষে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাচ্ছেন ভক্তসহ শুভাকাঙ্খীরা।

ছবি সংগৃহীত

জানাগেছে, শহরের মহিষখোলা এলাকার গোলাম মর্তুজা স্বপন এবং হামিদা মর্তুজা বলার বড় ছেলে কৌশিক আজকের মাশরাফি বিন মর্তূজা। মাশরাফির বাবা-মায়ের কাছে এখনও কৌশিকই আছেন। বিশ্ব যাকে চেনে মাশরাফি বিন মর্তুজা হিসাবে।

জানাগেছে, স্কুল পালিয়ে চিত্রা নদীতে সাঁতার কেটে, ফুটবল আর ব্যাডমিন্টন খেলে। অনূর্ধ্ব১৯ দলে সুযোগ পাওয়ার পর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোলিং কোচ অ্যান্ডি রবার্টস তাকে করেছেন আরও ধারালো। প্রথম শ্রেণির কোনও ম্যাচ না খেলেই টেস্টে অভিষেক হয়েছিল তার। বৃষ্টি বিঘ্নিত সেই ম্যাচে এক ইনিংস বল করে উইকেট নিয়েছিলেন মাশরাফি। এর পর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি নড়াইল এক্সপ্রেসকে। 

আক্রমণাত্মক গতিময় বোলিং দিয়ে অনূর্ধ্ব১৯ দলে থাকতেই তিনি নজর কেড়েছিলেন সাবেক ওয়েস্ট ইন্ডিজ ফাস্ট বোলার অ্যান্ডি রবার্টসের, যিনি তখন ছিলেন দলটির অস্থায়ী বোলিং কোচের দায়িত্বে। রবার্টসের পরামর্শে মাশরাফিকে বাংলাদেশ দলে নেওয়া হয়। বাংলাদেশ দলের হয়ে মাত্র একটি ম্যাচ খেলেই জাতীয় দলের দরজা খুলে যায় মাশরাফির।

ছবি সংগৃহীত

২০০১ সালের নভেম্বর বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে তার অভিষেক।
বৃষ্টির বাগড়ায় ম্যাচটি ড্র হলেও মাশরাফি অবশ্য অভিষেকেই তার জাত চিনিয়েছিলেন ১০৬ রানে ৪ উইকেট নিয়ে। মজার ব্যাপার হলো মাশিরাফির প্রথম শ্রেণির ম্যাচও ছিল এটি। ক্রিকেটের বিরল এই ঘটনার সাক্ষী হন তিনি ৩১তম খেলোয়াড় হিসেবে, যা ১৮৯৯ সালের পর তৃতীয়। একই বছরের ২৩ নভেম্বর ওয়ানডে ক্রিকেটে মাশরাফির অভিষেক হয় ফাহিম মুনতাসির ও তুষার ইমরানের সঙ্গে। অভিষেক ম্যাচে মোহাম্মদ শরীফের সঙ্গে বোলিং ওপেন করে তিনি ৮.২ ওভারে ২৬ রান দিয়ে নেন ২টি উইকেট। ওয়ানডে ও টেস্ট ক্রিকেটে দুই ফরম্যাটেই গ্রান্ট ফ্লাওয়ার ছিলেন মাশরাফির প্রথম শিকার!

নিজের তৃতীয় টেস্ট খেলার সময় তিনি আঘাত পান হাঁটুতে। তাতে প্রায় দুই বছর ক্রিকেটের বাইরে থাকতে হয় তাকে। ফিরেই ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৬০ রানে উইকেট নেওয়ার পর আবার আঘাত পান হাঁটুতে। যাত্রায় তাকে মাঠের বাইরে থাকতে হয় প্রায় বছরখানেক।

ছবি সংগৃহীত

২০০৬ সালে এক বর্ষপঞ্জিকায় মাশরাফি ছিলেন একদিনের আন্তর্জাতিক খেলায় বিশ্বের সর্বাধিক উইকেট শিকারি বোলার। তিনি ওই বছর নিয়েছিলেন ৪৯ উইকেট। ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে যে আলো ছড়িয়েছিলেন মাশরাফি, তাতে নিষ্ঠুর চোট তার শত্রু হয়ে না দাঁড়ালে উইকেট সংখ্যায় অনন্য এক উচ্চতায় যে তিনি উঠতেন, সেটা বলাই যায়।
ক্যারিয়ারের চলার পথে আঘাত এসেছে অনেক। কষ্টের অথৈ সাগরে পড়লেও কখনও ডুবে যাননি, সাঁতার কেটে ঠিকই উঠেছেন তীরে। সব কষ্টকে জয় করে ফিরেছেন বীরের বেশে। তবে সবচেয়ে বড় ধাক্কার কথা যদি বলা যায়, তাহলে সেটা ২০১১ সালের বিশ্বকাপ খেলতে না পারা। নিজেকে সেবার ধরে রাখতে পারেননি মাশরাফি। মনের দেয়াল ভেঙে কষ্টের চোরাস্রোত সামনে এসে বয়েছিল মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামসংলগ্ন একাডেমি মাঠে। চোখের জলে অন্য এক মাশরাফি ধরা দিয়েছিল সেদিন। যে দৃশ্যটা এখনও ভুলতে পারেননি অনেক ক্রীড়া সাংবাদিক।

ছবি সংগৃহীত

২০১৪ সালে বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের নেতৃত্ব পাওয়ার লাল সবুজের ইতিহাসে সর্বোচ্চ সাফল্যে এনে দিয়েছেন। বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে দুইবার এশিয়া কাপের ফাইনাল ছাড়াও, তার নেতৃত্বেই প্রথম আরাধ্য বহুজাতিক ট্রফি জেতে বাংলাদেশ। ৮৮ ম্যাচে টাইগারদের নেতৃত্ব দিয়ে ৫০ ম্যাচে বাংলাদেশকে বিজয়ের উপলক্ষ্য এনে দিয়েছেন সবার প্রিয় ম্যাশ।

গতবছরের মার্চে অধিনায়কত্ব ছেড়েছেন মাশরাফি। কিন্তু, ক্রিকেট এখনো ছাড়েননি। আরো খেলা চালিয়ে যাওয়ার ইচ্ছে মাশরাফির। বর্তমানে নড়াইল-০২ আসনের সংসদ সদস্য হিসেবে সবার আস্থাভাজন হয়ে উঠেছেন। প্রায় ২০ বছর দেশের হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলেছেন জীবন্ত কিংবদন্তি মাশরাফি।

এদিকে মাশরাফি ও ছেলে সাহেলের জন্মদিনে ফেসবুকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছে ক্রীকেটপ্রেমীসহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষ।

সুমনা হক সুমির ফেসবুকে লেখা

মাশরাফি বিন মর্তুজা সহধর্মিনী সুমনা হক সুমি লিখেছেন, এই সময়ে একটি সুস্থ জীবন যাপন করা আল্লাহর সবচেয়ে বড় নেয়ামত, এবং আল্লাহর রহমত আপনার উপর সর্বদা থাকুক। এই দিনটি আপনার জীবনে হাজার বার ফিরে আসুক।

মাশরাফি বিন মর্তুজার বন্ধু সৌমেন চন্দ্র বসু লিখেছেন, কিংবদন্তি অধিনায়ক হিসেবে বাংলার ক্রিকেটের স্বর্ণালি দিনের সূচনা যার নেতৃত্বে… বর্তমানে জন্মভূমি নড়াইলের মানুষের আস্থা,আবেগ আর ভালোবাসার ঠিকানা, দি আর্কিটেক্ট অব মডার্ন নড়াইল মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা এমপি ও তাঁর পুত্র স্নেহের সাহেলের জন্মদিনে অন্তরের অন্তঃস্থল থেকে শুভেচ্ছা। শুভ জন্মদিন ক্যাপ্টেন, শুভ জন্মদিন সাহেল। বাবার মতো ভালো মানুষ হও- তোমাদের বাবা-ছেলের জন্য নিরন্তর শুভ কামনা।

নড়াইল নিউজ ২৪.কম পরিবারের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন বাবা-ছেলের জন্মদিনে।

© এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি

ফেসবুকে শেয়ার করুন

More News Of This Category
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
Developed by: A TO Z IT HOST
Tuhin
x